Development Studies Subject Review In Bangla

0
10

যারা সাবজেক্ট চয়েস নিয়ে দোদুল্যমান অবস্থায় আছেন। তাদের সাবজেক্ট তালিকায় যদি ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ সাবজেক্টটি থাকে তারা এই সাবজেক্টটি নিতে পারেন। বা রিভিউ টি পড়ে ধারণা নিতে পারেন। তাহলে চলুন আমরা মূল আলোচনায় আসি। সবার আগে আমাদের জানতে হবে এই বিভাগে কি পিড়ানো হয়। কারণ অনেকে হয়ত এটাই জানেনা এই বিভাগের উদ্দেশ্যই বা কি।তাহলে আগেই এর উদ্দেশ্য কি বা এখানে কি পড়ানো হয় তা জেনে নেই।

ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজে পড়ার উদ্দেশ্য কি।
যদি নিজের মত করে একেবারেই সহজ ভাষায় বলি তবে বলতে হয়, ঢাবির এই বিভাগের উদ্দেশ্য হচ্ছে আন্তর্জাতিক, রাষ্ট্রীয় ও সামাজিক উন্নয়ন কীভাবে করা যায় তা জানা।
এবার একটু বিস্তারিত বলি। একটা সময় মানুষের ধারনা ছিল টাকা পয়সা থাকলেই কোনো ব্যক্তি, রাষ্ট্র বা প্রতিষ্ঠান উন্নত এবং তারাই সেরা। কিন্তু ৯০এর দশকে এসে এই ধারনা সম্পূর্ণ পাল্টে যায়। মানুষ বুঝতে শেখে টাকা পয়সা থাকলেই উন্নত বলা চলে না। বরং একটি দেশকে তখনই উন্নত বলা যায়, যখন সামাজিক, রাষ্ট্রীয়, সাংস্কৃতিক, অবকাঠামো, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন ইত্যাদি সামগ্রিকভাবে উন্নত হয়।এই সব উন্নয়ন করার জন্য প্রয়োজন গবেষণার। ফলে বিশেষ কিছু ব্যক্তির প্রয়োজন। তাই এই বিভাগের সূচনা। আর বিশ্বায়নের ফলে উন্নত দেশগুলোর সাথে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশ কে এগিয়ে নিতে আমাদের সরকারও আমাদের দেশের বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ চালু করার পরামর্শ দেন। বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়াও দেশের অনেক পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নয়ন অধ্যায়ন পড়ানো হচ্ছে। যেমন চবি, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনাল, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়,ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী দানেশ ইত্যাদি। কিছু প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়েও এই সাবজেক্টটি পড়ানো হচ্ছে।

বাংলাদেশে সর্ব প্রথম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০০০ সালে উন্নয়ন অধ্যায়ন বিভাগটি শুরু হয়। তবে আন্ডার গ্রাজুয়েট কোর্সটি মূলত ২০০৮-৯ থেকে চালু হয়। এখন ১৩ তম ব্যাচ চলছে। এছাড়া এখানে ১ বছর মেয়াদি মাস্টার্স কোর্স চালু আছে। মাস্টার্স অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ নামে সন্ধ্যালীন কোর্স আছে। ব্যাংকারদের জন্য এমফিল করার সুযোগ আছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here